fbpx
হোম Entertainment দ্য ওয়াকিং ডেড- কমিক থেকে টিভি সিরিজ

দ্য ওয়াকিং ডেড- কমিক থেকে টিভি সিরিজ

কেমন লাগবে হঠাৎ যদি ঘুম ভেঙে আবিষ্কার করেন আপনি ছাড়া আশেপাশে আর কোন মানুষ দেখা যাচ্ছে না। আর কিছুক্ষণ পরই বুঝতে পারলেন, আশেপাশের পরিচিত-অপরিচিত সবাই পরিণত হয়েছে জোম্বিতে! বাড়ি ফিরে গিয়ে দেখলেন, আপনার স্ত্রী-সন্তান নেই সেখানে। তারা বেঁচে আছে না মরে গেছে কিছুই জানা নেই আপনার! কী করবেন তখন?

ঠিক এমনই একটা কাহিনি দিয়ে শুরু আমাদের অতি পরিচিত আর ভীষণ জনপ্রিয় টিভি সিরিজ ‘দ্য ওয়াকিং ডেড’এর। নাম থেকেই অবশ্য আঁচ করা যায় সিরিজটা কোন ঘরানার। বিখ্যাত আমেরিকান নেটওয়ার্ক AMC এর ব্যানারে নির্মিত এই হরর-ড্রামা জনরার সিরিজটি মূলত একই নামের কমিক বুক সিরিজের উপর ভিত্তি করে টিভির পর্দায় এসেছে, আর জয় করে নিয়েছে হাজার দর্শকের মন।

 ৩১ অক্টোবর, ২০১০ থেকে প্রচারিত হওয়া ‘দ্য ওয়াকিং ডেড’ এর মোট আটটি সিজনে সর্বমোট একশো সাতটি এপিসোড অন এয়ার হয়েছে। প্রথম থেকেই জনপ্রিয় সিরিজটি নিজের জনপ্রিয়তা ধরে রাখতে পেরেছে এর শেষ পর্যন্ত। তাই IMDB তে ১০ এর মধ্যে ৮.৪ আর রটেন টমেটোতে ৮০% রেটিংস নিয়ে সবচেয়ে জনপ্রিয় হরর সিরিজগুলোর তালিকায় প্রথম বা দ্বিতীয়তে ‘দ্য ওয়াকিং ডেড’ এর নাম উঠে আসবেই।

কাহিনির শুরুতে দেখা যায়, সিরিজের মূল চরিত্র রিক গ্রাইমস কোমা থেকে জেগে নিজেকে আবিষ্কার করে ভিন্ন এক জগতে। যে জগতের সাথে আগের কিছুই মেলানো সম্ভব না। রাস্তায় পড়ে আছে শয়ে শয়ে বীভৎস লাশ আর যারা বেঁচে আছে তারাও সেই লাশের চাইতে কম বীভৎস নয়! জীবন্ত লাশগুলো হাঁটছে, চলছে আর সত্যিকারের জ্যান্ত কাউকে দেখতে পেলেই ঝাঁপিয়ে পড়ছে তার উপর- আর আক্রমণের শিকার মানুষগুলোও পরিণত হচ্ছে নতুন আরও জীবন্ত লাশে! স্ত্রী-সন্তানের খোঁজে মরিয়া রিক একলাই বেরিয়ে পড়ল এই ভয়াবহ পৃথিবীতে। আবিষ্কার করল, আরও মানুষ বেঁচে আছে তার মতো। একসময় ফিরে পেল তার পরিবারকেও, একটা ছোটখাট দল হয়ে গেল তাদের- আর এক সময়ের ডেপুটি শেরিফ রিক হলো সেই দলের নেতা। শুধু কি জোম্বিই তাদের একমাত্র শত্রু? বেঁচে থাকার পথের একমাত্র বাঁধা? নাকি আরও অনেক বাঁধার সম্মুখীন হতে হবে তাদের? নিষ্ঠুর নিয়তির কাছে কি শেষ পর্যন্ত হার মানবে রিক? দলনেতা হিসেবে কি ব্যর্থ হবে সে?

পুরো সিরিজটা জুড়েই টান টান উত্তেজনা বজায় রাখতে সমর্থ হয়েছেন এর পরিচালকরা, বিশেষ করে প্রথম সিজনের পরিচালক ফ্র্যাংক ড্যারাবন্ট, যার ঝুলিতে ‘দ্য শশাঙ্ক রিডেম্পশন’ আর ‘দ্য গ্রিন মাইল’ এর মতো বিখ্যাত সিনেমা পরিচালনার অভিজ্ঞতা রয়েছে। কিন্তু পরবর্তীতেও এই ধারা বজায় রাখতে পেরেছেন তার সতীর্থরা, যার প্রমাণ সিরিজটার আকাশছোঁয়া জনপ্রিয়তা।

Must Read

হেকিমি চিকিৎসা কি?

হেকিমি চিকিৎসা পদ্ধতি কি? হেকিমি চিকিৎসা (Hakeemi Treatment)  ইউনানি দর্শনভিত্তিক চিকিৎসা পদ্ধতি। উদ্ভিজ্জ ভেষজ দ্বারা ঐতিহ্যিক ধারায় রোগ নিরাময়ের এই পদ্ধতির চিকিৎসকরা হেকিম নামে পরিচিত। হেকিম...

অবচেতন মনকে নিয়ন্ত্রণ করবেন? কিন্তু কীভাবে?

মনে করুন, আপনি খুব সচেতনভাবেই চাইছেন কোনো একটি কাজ করতে। আপনার বন্ধু-বান্ধব ও পরিবারের সদস্যরাও আপনাকে প্রণোদনা যোগাচ্ছে কাজটি করার জন্য। কিন্তু বাস্তবে কাজটি করতে গিয়ে বারবার ব্যর্থ হচ্ছেন আপনি।

ডিকয় ইফেক্ট : অকারণে বেশি খরচ করতে উৎসাহী করে

ডিকয় ইফেক্ট: যা আপনাকে অকারণে বেশি খরচ করতে উৎসাহী করে

‘দ্য গডফাদার’ সিনেমার পেছনের ইতিহাস

'দ্য গডফাদার' চলচ্চিত্রটি নির্মিত হয়েছে মারিয়ো পুজোর পঞ্চম উপন্যাস দ্য গডফাদারের উপর ভিত্তি করে। উপন্যাসটির যখন মাত্র ১০০ পৃষ্ঠা লেখা হয়, তখন থেকেই প্যারামাউন্ট বইটির স্বত্তাধিকার কেনার পরিকল্পনা করতে থাকে এবং শেষে ৮০,০০০ ডলারে সেটি কিনে নেয়। 'The Godfather Legacy' ডকুমেন্টরি থেকে জানা যায়, তখনকার প্যারামাউন্ট পিকচারসের ভাইস প্রেসিডেন্ট স্ট্যানলি জেফি টেলিফোন করেন আলবার্ট রুডিকে (গডফাদারের নির্মাতা), এবং জিজ্ঞেস করেন তিনি কি গডফাদার মুভির নির্মাতা হতে চান কি না। আলবার্ট তখনো বইটি পড়েননি। তাই তিনি সাথে সাথেই বইটি কিনে আনেন এবং অন্য সবার মতোই মুগ্ধ হয়ে যান। হলিউডের সেরা কিছু চলচ্চিত্রের নাম বললে সেখানে ‘দ্য গডফাদার’ যে থাকবে তাতে কোনো সন্দেহ নেই।

শুচিবায়ুঃ অভ্যাস নাকি ব্যাধি?

বাংলায় আমরা যেটাকে ‘শুচিবায়ু’ বলে থাকি, সেটা বিশেষ একটা মনস্তাত্ত্বিক রোগের নাম। যাকে ইংরেজীতে ‘অবসেসিভ-কমপালসিভ ডিজঅর্ডার’ (Obsessive-Compulsive Disorder বা সংক্ষেপে OCD) বলা হয়। তবে এই রোগের লক্ষণগুলো চরম পর্যায়ে পৌছালে অথবা দৈনন্দিন জীবনে এই উপসর্গগুলোর নেতিবাচক প্রভাব পড়া শুরু করলে তবেই একে ওসিডি বলা যাবে।
//graizoah.com/afu.php?zoneid=2982870