fbpx
হোম Entertainment গেম অব থ্রোনসঃ লড়াইটা  যখন সিংহাসন দখল কিংবা অধিকারের

গেম অব থ্রোনসঃ লড়াইটা  যখন সিংহাসন দখল কিংবা অধিকারের

গেম অব থ্রোনসঃ লড়াইটা যখন সিংহাসন দখল কিংবা অধিকারের 

টিভি পর্দায় বাজছে সম্মোহনী এক আবহ সঙ্গীত। এ যেন হাজার বছরের ক্লান্তিকে বিদায় জানিয়ে ঘরে ফেরার মত। রক্ত, সিংহাসন নিয়ে লড়াই, বিশ্বাসঘাতকতা, ড্রাগন আর হোয়াইট ওয়াকারদের নিয়ে জমজমাট এক টিভি সিরিজ। ‘গেম অব থ্রোনসের’ কথা বলছি টিভি সিরিজের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি বাজেটের এবং সবচেয়ে বেশি আয় করা সিরিজ এটি। গল্পের ধারাবাহিকতা, দূরু-দূরু বুকে মৃত্যুর অপেক্ষা, সুমধুর আবহ সঙ্গীত, সময়ের সাথে কাহিনীর ঘনত্ব বেড়ে যাওয়া, আর সুন্দর সব দৃশ্যায়ন-সিরিজটিকে নিয়ে গিয়েছে অনন্য একটি উচ্চতায়।

২০১১ সালের ১৭ই এপ্রিল দুর্দান্ত ফ্যান্টাসি টিভি সিরিজটি প্রথম প্রচারিত হয়। তারপর থেকে একেএকে আটটি সিজন প্রচারিত হয়েছে। প্রতিটি সিজনই ছিল কাহিনী সমৃদ্ধ। তাই ড্রাগন, হোয়াইট ওয়াকারদের আগমণ একবারের জন্যও আপনাকে বিরক্ত করবে না। উল্টো প্রতিটি মিনিট উপভোগ করতে গিয়ে দেখবেন একসময় পর্বটি শেষ!

জর্জ আর.আর মার্টিন রচিত ‘এ সং অব আইস এন্ড ফায়ার’ উপন্যাস অবলম্বনে তৈরি হয়েছে ‘গেম অব থ্রোনস’। তবে বেশ কিছু জায়গায় কাহিনী উপন্যাসের কাহিনী থেকে কিছুটা আলাদা ছিল। কাল্পনিক ‘ওয়েস্টেরস’ মহাদেশ হলো এই কাহিনীর মূল ভিত্তি। এখানকার সাতটি রাজ্য পরস্পরের সাথে যুদ্ধে লিপ্ত। অভিজাতদের মূল টার্গেট কিংস ল্যান্ডিং দখল করা। কারণ রাজ্যটি সবচেয়ে অভিজাত, সমৃদ্ধশালী এবং ক্ষমতাবান। তাদের মাঝে যাদুবিদ্যার প্রভাব এবং ব্যবহার চোখে পড়ার মত। মৃত মানুষদের সেনাবাহিনী,  ড্রাগনের উপস্থিতি, এগুলো  কাল্পনিক চরিত্র হয়েও যেন জীবন্ত ছিল। যেন এগুলো সেইসব ঘটনারই অংশ!

যুদ্ধ, পারিবারিক মতের অমিল, রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের মত বিষয়গুলোই ছিল কাহিনীর মূল উপজীব্য।মৃত্যু যেন নিত্যদিনের একটি বিষয়! মধ্যযুগীয় পটভূমিতে চিত্রায়িত সিরিজটি যেন মধ্যযুগকেই আমাদের চোখের সামনে তুলে ধরছে জীবন্ত রূপে। পুরো সিরিজ জুড়েই স্টার্ক ফ্যামিলি আর তার সদস্যদের নির্মম মৃত্যু দর্শকদের মনকে আন্দোলিত করে। তাদের যাযাবর জীবন-যাপন, নিজেদের মর্যাদা ফিরে পাবার শপথ- এই পরিবারকে আবারও একসাথ হওয়ার প্রেরণা যোগায়।

অন্যদিকে টার্গেরিয়ানরাও নিজেদের পুরনো রাজ্যত্ব ফিরে পাবার লড়াইয়ে নামে। ধ্বংস, মৃত্যুর মধ্য দিয়েই অধিকার ফিরে পাবার এই লড়াই এগিয়ে যায়। তবে আবারও বলছি, বাস্তবতার সাথে কল্পনার মিশেলে তৈরি এই সিরিজের শেষ দেখার জন্য, আপনি উদগ্রীব হবেনই।

Must Read

আইপিও আবেদন ডিসেম্বর-এনার্জিপ্যাক বাংলাদেশ

আইপিও আবেদন ডিসেম্বর-এনার্জিপ্যাক বাংলাদেশ। এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেডের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) আবেদন গ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ৭ ডিসেম্বর। কোম্পানিটির...

ক্লাউড প্রযুক্তি সমৃদ্ধ ভিডিও কনফারেন্স সুবিধা নিয়ে এসেছে হুয়াওয়ে

এক সাথে যুক্ত হতে পারবেন ১,০০০ জন হুয়াওয়ে সম্প্রতি বাংলাদেশসহ এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে ‘হুয়াওয়ে...

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস২০ – চলছে প্রি-অর্ডার

বর্তমানের তরুণ প্রজন্মের নানামুখী চাহিদার এক অনন্য সমাধান হিসেবে স্যামসাং বাংলাদেশ এবার নিয়ে এলো স্যামসাং গ্যালাক্সি এস২০ এফই। ‘ফ্যান এডিশন’ হিসেবে এ...

৬,০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি আর ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং-সহ সি সিরিজের ফোন আনছে রিয়েলমি

তরুণদের পছন্দের স্মার্টফোন ব্র্যান্ড রিয়েলমি বাংলাদেশে সি সিরিজের আরেকটি ফোন – সি ১৫ – কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন এডিশন নিয়ে আসছে। নতুন এ...

কোভিড-১৯ চলাকালীন সময়েও দেশজুড়ে ইন-হোম সেবা দিচ্ছে স্যামসাং

প্রয়োজন অনুযায়ী ক্রেতাদের বিক্রয়োত্তর সেবা প্রদানে কোভিড-১৯ চলাকালীন সময়েও স্যামসাং বাংলাদেশ দেশজুড়ে ইন-হোম সেবা প্রদান করছে। দেশের একমাত্র প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্যামসাং...