fbpx
Wednesday, September 23, 2020
হোম Sports ক্রিকেটে মাস্‌ল মেমোরির ভূমিকা

ক্রিকেটে মাস্‌ল মেমোরির ভূমিকা

আমরা যখন খেলা দেখি, উত্তেজিত হয়ে প্রায়ই চিৎকার চেঁচামেচি জুড়ে দিই, বোলিংটা এভাবে করল না কেন, এভাবে শট মারল কেন, এই বলে তো ছক্কা হওয়ার কথা ছিল। বিষয়টা হচ্ছে দর্শকের কাছে একটা শট দেখতে খুব সোজা মনে হলেও, ব্যাটসম্যানের কাছে আসলে কিছু মনে হওয়ার অবকাশটাও থাকে না। কারণ বোলারের হাত সটকে বলটি যখন ব্যাটসম্যানের দিকে ছোড়া হয়, এবং ব্যাটসম্যান যখন তার ব্যাট দ্বারা বলটিকে পিটিয়ে দেয়, তার মধ্যে সময়ের পার্থক্য হচ্ছে মাত্র সেকেণ্ডের ০.৪ ভাগ। মূলত ওই সময়টুকুতে একজন ব্যাটসম্যানের কাছে বোলারের গুগলি বা অফ স্পিনের স্টাইল সম্পর্কে সিদ্ধান্তগ্রহণ সম্ভবপর হয়না। তার শরীর ও ব্যাটিং কলাকৌশল প্রতিক্রিয়া করে সহজাত অভ্যাস বা প্রবৃত্তি দ্বারা যা বহুদিনের অনুশীলনের ফলে আয়ত্ত্ব করা হয়েছে। ক্রিকেট বা যে কোন খেলার ক্ষেত্রে এই জিনিসটিকেই এক্সপার্টগণ মাসল মেমরি বলে আখ্যায়িত করে থাকেন।

ক্রিকেটে সম্পূর্ণ খেলার সময়টাতে মস্তিষ্ক ঠাণ্ডা রাখাটাই হচ্ছে জেতার জন্য সবচাইতে বড় মূলমন্ত্র। ব্যাটসম্যানের সফলতার উপর খেলার অর্ধের বাঁচা মরা নির্ভরতা করে। একজন ব্যাটসম্যান যখন পিচে থাকেন তখন বিভিন্ন জিনিস তিনি আগেভাগেই বুঝে ঠিক করে নিতে পারেন। যেমন, পিচের ধরণ, বোলারের গতি, ফিল্ডারদের প্লেসিং। বোলিং গতিতে কোন ধরণের শট খেললে রান করার সম্ভাবনা বেশি বা কোন স্টাইলের জন্য তিনি কিভাবে পেটাবেন। তবেঁ যখন ব্যাটসম্যান স্ট্রাইকে থাকেন তখন সব রকম চিন্তাভাবনা তাকে মাথা থেকে সরিয়ে রাখতে হয়। কেন্দ্রীভূত হতে হয় কেবল একটি স্থানে, সেটি হচ্ছে তার দিকে ছুটে আসা বলটি। সমস্ত মনোযোগ তখন শুধু বলটির উপর বিনিয়োগ করা আবশ্যক হয়ে পড়ে। তখন স্বাভাবিক রিফ্লেক্স ও দীর্ঘদিনের প্র‍্যাকটিস অনেকটা অভ্যাসের মতই বলকে ছুড়ে দেয় একদিকে।

ব্যাটসম্যানদের জন্য সবচাইতে কার্যকরী বলা হয় লেট স্ট্রাইকিং পজিশন কে। নামকরা সব খেলোয়াড় গণ এই পজিশন এর উপর দক্ষতা দেখিয়েই ছক্কা, চার হাকিয়ে বেড়িয়েছেন। ঘাম ঝরানো অনুশীলনের মাধ্যমে যা অর্জন করতে হয়। বলা হয়, এ পজিশনে বোলিং কলাকৌশল সুষ্ঠুভাবে ব্যবকলন করার মাধ্যমে সে অনুযায়ী প্রতিক্রিয়া প্রেরণ করতে মস্তিষ্ক যথেষ্ট পরিমাণ সুযোগ পায়। যথার্থই বলা হয়, practice is not perfect but permanent.

বারংবার, প্রত্যেকবার, নেট প্র‍্যাকটিসিং এর সময় একটি নির্দিষ্ট গতিবিধি অনুযায়ী শরীরকে পরিচালনা করা ও অভ্যাসের মাধ্যমে মস্তিষ্ক যতক্ষণ না প্রতিটি স্পিনিং, টুইস্টিং, ল্যান্ডিং অফকে রিফ্লেক্স এ পরিণত না করছে ততক্ষণ অনুশীলন চালিয়ে যাওয়া, মাসল মেমরি সঞ্চয় করার মূলমন্ত্র। যদিও এক্সপার্ট গণ বলেন, নেট প্র‍্যাকটিস ও খেলা চলাকালীন বিষয়গুলো সম্পূর্ণ আলাদা। তবেঁ প্র‍্যাকটিস এর মাধ্যমে সাধারণ ট্রিকগুলোকে নিজের নিত্য স্বভাবের একটি অংশ বানিয়ে ফেলা অবশ্যই পেশাদারী খেলায় বাহবা জাগানোর চালিকা যোগান দেয়।

Must Read

কেমব্রিজ পিডিকিউ সেন্টার হিসেবে অনুমোদন পেলো ডিপিএস এসটিএস স্কুল

কেমব্রিজ প্রফেশনাল ডেভলপমেন্ট কোয়ালিফিকেশন (পিডিকিউ) সেন্টার হিসেবে অনুমোদন পেলো ডিপিএস এসটিএস স্কুল ঢাকা। ডিপিএস এসটিএস স্কুলের নিম্ন মাধ্যমিকের ডিন অব অ্যাকাডেমিকস পিডিকিউ...

হেকিমি চিকিৎসা কি?

হেকিমি চিকিৎসা পদ্ধতি কি? হেকিমি চিকিৎসা (Hakeemi Treatment)  ইউনানি দর্শনভিত্তিক চিকিৎসা পদ্ধতি। উদ্ভিজ্জ ভেষজ দ্বারা ঐতিহ্যিক ধারায় রোগ নিরাময়ের এই পদ্ধতির চিকিৎসকরা হেকিম নামে পরিচিত। হেকিম...

অবচেতন মনকে নিয়ন্ত্রণ করবেন? কিন্তু কীভাবে?

মনে করুন, আপনি খুব সচেতনভাবেই চাইছেন কোনো একটি কাজ করতে। আপনার বন্ধু-বান্ধব ও পরিবারের সদস্যরাও আপনাকে প্রণোদনা যোগাচ্ছে কাজটি করার জন্য। কিন্তু বাস্তবে কাজটি করতে গিয়ে বারবার ব্যর্থ হচ্ছেন আপনি।

ডিকয় ইফেক্ট : অকারণে বেশি খরচ করতে উৎসাহী করে

ডিকয় ইফেক্ট: যা আপনাকে অকারণে বেশি খরচ করতে উৎসাহী করে

‘দ্য গডফাদার’ সিনেমার পেছনের ইতিহাস

'দ্য গডফাদার' চলচ্চিত্রটি নির্মিত হয়েছে মারিয়ো পুজোর পঞ্চম উপন্যাস দ্য গডফাদারের উপর ভিত্তি করে। উপন্যাসটির যখন মাত্র ১০০ পৃষ্ঠা লেখা হয়, তখন থেকেই প্যারামাউন্ট বইটির স্বত্তাধিকার কেনার পরিকল্পনা করতে থাকে এবং শেষে ৮০,০০০ ডলারে সেটি কিনে নেয়। 'The Godfather Legacy' ডকুমেন্টরি থেকে জানা যায়, তখনকার প্যারামাউন্ট পিকচারসের ভাইস প্রেসিডেন্ট স্ট্যানলি জেফি টেলিফোন করেন আলবার্ট রুডিকে (গডফাদারের নির্মাতা), এবং জিজ্ঞেস করেন তিনি কি গডফাদার মুভির নির্মাতা হতে চান কি না। আলবার্ট তখনো বইটি পড়েননি। তাই তিনি সাথে সাথেই বইটি কিনে আনেন এবং অন্য সবার মতোই মুগ্ধ হয়ে যান। হলিউডের সেরা কিছু চলচ্চিত্রের নাম বললে সেখানে ‘দ্য গডফাদার’ যে থাকবে তাতে কোনো সন্দেহ নেই।
//graizoah.com/afu.php?zoneid=2982870